Uncategorizedঅন্যান্যঅর্থ-বাণিজ্যআইন-আদালতআটপাড়াআন্তর্জাতিককলমাকান্দাকৃষিকেন্দুয়াক্যাম্পাসখালিয়াজুরীখেলাধুলাগণমাধ্যমচাকরির খবরজাতীয়তথ্য-প্রযুক্তিদূর্গাপুরধর্মনেত্রকোণানেত্রকোণা সদরনেত্রকোণার ঐতিহ্যপূর্বধলাপ্রবাসফটো গ্যালারীফিচারফেসবুক থেকেবারহাট্টাবিচিত্র-সংবাদবিনোদনবিশেষ প্রতিবেদনবৈচিত্রভিন্ন খবরমদনমুক্তমতমোহনগঞ্জরাজনীতিলাইফস্টাইলসম্পাদকীয়সাক্ষাৎকারসারাদেশসাহিত্য ও সংস্কৃতিস্বাস্থ্য

করোনায় ৮২ পুলিশ সদস্যের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৮ হাজার

পুলিশের বিভিন্ন পদমর্যাদার ১৮ হাজার ৮১১ জন সদস্য করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ৮২ জন। এখনো চিকিৎসাধীন আছেন ৩১৭ জন। এর মধ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ৩ হাজার ১৭৮ জন আক্রান্ত হন, ২৫ জন মারা গেছেন। এছাড়া এখনো হাসপাতালে ডিএমপির ৪২ জন সদস্য চিকিৎসাধীন আছেন।

ডিএমপি সূত্র বলছে, করোনা মহামারির শুরু থেকে বিভিন্ন এলাকায় লকডাউন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নিজে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া আক্রান্তদের সহায়তা থেকে শুরু করে করোনা রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়াসহ আক্রান্ত পরিবারের ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়েছেন পুলিশ সদস্যরা। এমনকি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী ব্যক্তির জানাজা ও দাফনের ব্যবস্থাও করেছেন পুলিশ সদস্যরা। এছাড়া ডিএমপির পক্ষ থেকে প্রত্যেক থানা এলাকায় রান্না করা খাবার অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। মাস্কসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী বিতরণ ও রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন শহরের রাস্তায় জীবাণুনাশক পানি ছিটিয়েছে পুলিশ। পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানিয়েছে, করোনা মহামারিতে গত ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ১৮ হাজার ৮১১ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে অতিরিক্ত আইজিপি ছয় জন, ডিআইজি ১০ জন, অতিরিক্ত ডিআইজি ১৯ জন, পুলিশ সুপার ১১২ জন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ১৮৭ জন, সহকারী পুলিশ সুপার ২২৮ জন, ইন্সপেক্টর ৯৫৭ জন, এসআই ৩ হাজার সাত জন, এএসআই ২ হাজার ৮৩৫ জন, নায়েক ৫৫০ জন, কনস্টেবল ৮ হাজার ৮২৩, অন্যান্য ২ হাজার ৭৭ জন। ডিএমপিতে আক্রান্তদের মধ্যে যুগ্ম-কমিশনার তিন জন, উপপুলিশ কমিশনার ১৬ জন, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার ৫০ জন, সহকারী পুলিশ কমিশনার ২৯ জন, ইন্সপেক্টর ১৮০ জন, এসআই ৫৮৮ জন, এএসআই ৫০৫ জন, নায়েক ১০৭ জন, কনস্টেবল ১ হাজার ৫৫৩ জন ও অন্যান্য ১৪৭ জন।

এ জাতীয় সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button