রাজনীতি

আজ দ্বিতীয় ধাপে ৬০টি পৌরসভার ভোটগ্রহণ

আজ দ্বিতীয় ধাপে ৬০টি পৌরসভার ভোটগ্রহণ। পৌরসভাগুলোর মধ্যে ২৯টিতে ভোটগ্রহণ হবে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এবং ৩১টিতে হবে ব্যালটের মাধ্যমে। সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে একটানা চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

এরই মধ্যে ভোটগ্রহণের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ভোট উপলক্ষে অনেক পৌরসভায় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এসব পৌরসভায় নির্বাচনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আজ রাত ১২টা থেকে আগামীকাল (১৬ জানুয়ারি ভোটের দিন) রাত ১২টা পর্যন্ত পৌরসভাগুলোয় লঞ্চ, ইঞ্জিনচালিত সব ধরনের নৌযান (ভোটারদের চলাচলের জন্য ছোট নৌযান চলতে পারবে) ও স্পিড বোট চলাচল বন্ধ থাকবে।

নির্বাচনকালে যেন কোনো বিঘ্ন না ঘটে এজন্য পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসারের সমন্বয়ে মোবাইল ফোর্স, স্ট্রাইকিং ফোর্স ও র‌্যাব মোতায়েন থাকবে। পাশাপাশি পুলিশ ও আনসার সদস্যও থাকবে মাঠে।

ইসির একটি সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছে, প্রথম ধাপের ২৩টি পৌরসভায় মোটামুটি শান্তিপূর্ণ হলেও দ্বিতীয় ধাপে সংঘাত-সহিংসতা বেড়েছে। এর রেশ ভোটগ্রহণের সময়েও থাকতে পারে। তবে এ ব্যাপারে ইসি ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো বেশ সতর্ক।

এদিকে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, পৌরসভায় সুষ্ঠু ভোটের জন্য তারা নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করবে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের শুক্রবার বলেছেন, ‘অতীতের ধারাবাহিকতায় নির্বাচন কমিশনকে সরকার নির্বাচনের বিষয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতা দেবে। এটা সরকারের দায়িত্ব। শনিবার অনুষ্ঠেয় দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে সরকার কোনো প্রকার হস্তক্ষেপ করবে না।’

অপরদিকে ভোট নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি শুক্রবার বলেছেন, ‘আমাদের দুর্ভাগ্য, এখন পর্যন্ত পৌরসভার নির্বাচন যতগুলো দেখলাম, বেশিরভাগ নির্বাচনে দেখলাম সরকার একইভাবে— ২০১৮ সালে নির্বাচনে জোর করে আগের রাতেই রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যবহার করে ভোট ডাকাতি করে নিয়ে গেছে, একই কায়দায় তারা পৌরসভাগুলোতে ভোট ডাকাতি করে নিয়ে যাচ্ছে।’

ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হবে-

দিনাজপুরের জেলার বীরগঞ্জ, বগুড়ার সারিয়াকান্দি ও সান্তাহার, নওগাঁর নজিপুর, রাজশাহীর কাকনহাট ও আড়ানী, নাটোরের নলডাঙ্গা, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর, পাবনার ফরিদপুর, মেহেরপুরের গাংনী, কুষ্টিয়ার কুমারখালী, ঝিনাইদহের শৈলকুপা, বাগেরহাটের মোংলা পোর্ট, মাগুরার মাগুরা, পিরোজপুরের পিরোজপুর, টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী, ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া, নেত্রকোনার কেন্দুয়া, কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর, ঢাকার সাভার, নরসিংদীর মনোহরদী, নারায়ণগঞ্জের তারাব, শরীয়তপুরের শরীয়তপুর, সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর, কুমিল্লার চান্দিনা, ফেনীর দাগনভূঞা, নোয়াখালীর বসুরহাট, খাগড়াছড়ির খাগড়াছড়ি এবং গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভায়।

ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হবে-

চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ, সিরাজগঞ্জের বেলকুচি, উল্লাপাড়া, সদর ও রায়গঞ্জ, নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ, কুষ্টিয়ার সদর, ভেড়ামারা ও মিরপুর, মৌলভীবাজারের কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ, কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ ও সদর, দিনাজপুর সদর ও বিরামপুর, পাবনার ভাঙ্গুড়া, সাথিয়া ও ঈশ্বরদী, রাজশাহীর ভবানীগঞ্জ, সুনামগঞ্জের সদর ও ছাতক, হবিগঞ্জের মাধবপুর ও নবীগঞ্জ, ফরিদপুরের বোয়ালমারী, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা, নাটোরের গুরুদাসপুর ও গোপালপুর, বগুড়ার শেরপুর, বান্দরবান জেলার লামা এবং কিশোরগঞ্জ সদর পৌরসভায়।

এ জাতীয় সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button